সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:০৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ে বসন্ত ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত উদ্ধার হওয়া হারানো ফোন ও প্রতারণার টাকা হস্তান্তর করেছে এপিবিএন জেলা শিক্ষা বিভাগকে হারিয়ে জয়লাভ করেন বান্দরবান জেলা পুলিশ দল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শরণ এর উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালন বান্দরবানে বারি উদ্ভাবিত কৃষি যন্ত্রপাতির পরিচিতি ও প্রশিক্ষণ অনুষ্টিত বান্দরবানে পর্যটকবাহী বাস উল্টে আহত ২০ পর্যটক বান্দরবানে নানা আয়োজনে চলছে সনাতনী ধর্মালম্বীদের সরস্বতী পূজা ভালোবাসা দিবস উপলক্ষ্যে পর্যটকদের ফুল দিয়ে বরণ করলেন প্রথমআলো বন্ধুসভা বান্দরবানে পার্বত্য বক্সিং বাছাই ফ্রেন্ডলি ম্যাচ অনুষ্ঠিত বান্দরবানে মিসকি খাল পরিচ্ছন্নতা অভিযান

বান্দরবানে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত

 

সোহেল কান্তি নাথ
যথাযোগ্য মর্যাদায় বান্দরবানে বিশ^ মৃত্তিকা দিবস পালিত হয়েছে। ‘মাটি ও পানি জীবনের উৎস’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিণ শেসে একেই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে র‌্যালী শেষে কৃষি সম্প্রসারণ মিলনায়তনে একটি আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: জুলহাস আহমেদ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক এস.এম মঞ্জুরুল হক। এসময় অ্যান্যদের মধ্যে মৃত্তিকা ও পানি সংরক্ষণ বিভাগের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো: মাহবুবুল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর, কৃষি সম্প্রসারণ অধিধপ্তর হর্টিকালচার সেন্টার বান্দরবান এর উপপরিচালক আমিনুর রশিদ, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা অভিজিৎ শীল, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কমল কৃষ্ণ রায়সহ বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও কৃষকরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের বান্দরবান একটি পাহাড় বেষ্টিত এলাকা। আর পাহাড় হচ্ছে মাটি। আর মাটি একটি অনবায়ন যোগ্য ও সসীম প্রাকৃতিক সম্পদ। একে বারবার নবায়ন করা যায় না। ভূমিক্ষয় হওয়ার ফলে কৃষকরা সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। আবাদযোগ্য জমির পরিমাণ এতে দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। বিভিন্ন কারণে আজকে ধংসের মুখে পতিত হচ্ছে মৃত্তিকা সম্পদ। এসময় বক্তারা আরো বলেন, খাদ্য ও বাসস্থানের প্রধান ও অন্যতম মাধ্যম এই মৃত্তিকা, তাই এর নিরাপত্তার জন্য চাই সঠিক ব্যবস্থাপনা। মৃত্তিকার উন্নয়ন মানেই ফসলের গুণগত মানের উন্নতি এবং তা নিশ্চিত করে বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তা। একই সাথে জলবায়ু পরিবর্তন রোধের জন্য মৃত্তিকা ব্যবস্থাপনাও একান্তভাবে জরুরী। মাটি,মাটির উর্বরতা ও খাদ্য নিরাপত্তা হোক পরিবেশবাদীদের ভবিষ্যৎ চিন্তা ও বিজ্ঞানীদের আগামির গবেষণার বিষয়। এসময় বক্তারা ভূমি ক্ষয় নিয়ন্ত্রণ,পানির উৎস সংক্ষণ,পাহাড় কাটার প্রতিরোধ,নির্বিচারে বৃক্ষ নিধন বন্ধ,পাথর উত্তোলন বন্ধ করে মাটি ক্ষয় রোধ, পানির উৎস সংরক্ষণ ও ভূমি ধ্বস রক্ষার্থে সকলের প্রতি আহবান জানান।

পোস্টটি শেয়ার করুন:

আপনার মতামত দিন


© All rights reserved © 2021 Dainik Natun Bangladesh
Design & Developed BY N Host BD