সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ে বসন্ত ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত উদ্ধার হওয়া হারানো ফোন ও প্রতারণার টাকা হস্তান্তর করেছে এপিবিএন জেলা শিক্ষা বিভাগকে হারিয়ে জয়লাভ করেন বান্দরবান জেলা পুলিশ দল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শরণ এর উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালন বান্দরবানে বারি উদ্ভাবিত কৃষি যন্ত্রপাতির পরিচিতি ও প্রশিক্ষণ অনুষ্টিত বান্দরবানে পর্যটকবাহী বাস উল্টে আহত ২০ পর্যটক বান্দরবানে নানা আয়োজনে চলছে সনাতনী ধর্মালম্বীদের সরস্বতী পূজা ভালোবাসা দিবস উপলক্ষ্যে পর্যটকদের ফুল দিয়ে বরণ করলেন প্রথমআলো বন্ধুসভা বান্দরবানে পার্বত্য বক্সিং বাছাই ফ্রেন্ডলি ম্যাচ অনুষ্ঠিত বান্দরবানে মিসকি খাল পরিচ্ছন্নতা অভিযান

সীমান্তে ব্যাপক গোলাগুলি, নির্ঘুম রাত ঘুমধুম-তুমব্রুবাসীর

সোহেল কান্তি নাথ, স্টাফ রিপোর্টার:
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম-তুমব্রু সীমান্তের মিয়ানমারে অভ্যন্তরে সামরিক জান্তা বাহিনীর সাথে স্বাধীনতাকামী সংগঠন আরকান আর্মির মধ্যে তুমুল লড়াই চলছে। সীমান্তবর্তী ক্যাম্প দখলকে কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে ব্যাপক গোলাগুলি হচ্ছে। শনিবার বিকাল থেকে থেমে থেমে গোলাগুলি হয়ে আসলেও আজ রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারী) ভোর থেকে লাগাতার গোলাগুলি, মার্টারশেল নিক্ষেপ ও রকেট লান্সার বিষ্ফোরণের বিকট শব্দে কেপে উঠছে সীমান্তবর্তী নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম-তুমব্রুর বিস্তীর্ণ এলাকা। শুধু তাই নয় গুলির শীষা ও রকেট লান্সার উড়ে এসে পড়েছে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঘুমধুম-তুমব্রু এলাকায় বসত ঘরের উপর। এ ঘটনায় কোন হতাহত না হলেও আতংকিত হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী। অনেকেই আতংক, উৎকণ্ঠায় নির্ঘুম রাত ঘরে বসেই কাঠিয়েছে। ভয়ে ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠাতেও পারছেনা অভিভাবকরা। এছাড়াও কৃষকরা কৃষি ক্ষেতে যেতে ও দৈনন্দিন কাজ করতেও ভয় পাচ্ছে এলাকাবাসী।

তুমব্রু বাসার এলাকার বাসিন্দা রূপলা ধর বলেন, ভোর ৮টা থেকে ব্যাপক গোলাগুলির শব্দ হচ্ছে। পরিবারের সবাই না ঘুমিয়ে বসে আছি। অনেক ভয় হচ্ছে, কখন কোন সময় কি হয় তা আমরা জানি না। তিনি আরও বলেন, আমাদের পাশের এলাকার এক ঘরের চালের উপর বিষ্ফোরিত রকেট লান্সার এসে পড়েছে শুনেছি। অনেকের উঠানে গুলিও এসে পড়েছে। এ ঘটনায় ঘরের বাহিরে যেতেও ভয় হচ্ছে বলে জানান তিনি।

তুমব্রু কোনার পাড়ার বাসিন্দা ভুলু বলেন, রাত ১১টার দিকে মর্টারশেলের বিষ্ফোরিত অংশ আমার ঘরের ছাল ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে পড়ে। একটুর জন্য আমাদের পরিবার প্রাণে রক্ষা পেয়েছে। আমরা খুব ভয়ে আছি, ঘরেও নিরাপদে থাকতে পারছিনা।

এ বিষয়ে ঘুমধুম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, রবিবার ভোর থেকে মিয়ানমার সীমান্তের অভ্যন্তে ব্যাপক গোলাগুলি হচ্ছে। এতে বিকট শব্দে কেপে উঠছে আমাদের ঘুমধুম-তুমব্রু সীমান্তবর্তী এলাকা। এলাকাবাসীদেরকে বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের না হওয়ার জন্য বলা হচ্ছে বলে জানান চেয়ারম্যান।

এদিকে সীমান্তে যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ও অনুপ্রবেশ ঠেকাতে প্রশাসনের পাশাপাশি বিজিবি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন:

আপনার মতামত দিন


© All rights reserved © 2021 Dainik Natun Bangladesh
Design & Developed BY N Host BD