রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৪২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বান্দরবানে সকল সম্প্রদায়ের অংশগ্রহণে পহেলা বৈশাখ পালিত সরকারী ছুটিকে কাজে লাগিয়ে বান্দরবানে রাতের আধারে পাহাড় কাটার মহোৎসব পাহাড়ে বর্ণিল আয়োজনে শুরু হল সাংগ্রাই উৎসব যৌথ অভিযানের কারণে রুমা উপজেলায় পর্যটক ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারী নতুন ভোরকে স্বাগত জানিয়ে পাহাড়ে শুরু হলো বৈসাবী উৎসব বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর অভিযানে আরো ৩ জন গ্রেফতার বান্দরবানের রুমায় সোনালী ব্যাংক লুট, ম্যানেজার অপহরণ বান্দরবানে বিপন্ন প্রজাতির ২টি ভাল্লুকের বাচ্চা উদ্ধার, আটক- ১ ফরেস্টার সাজাদ্দুজামান সজল হত্যার প্রতিবাদে বান্দরবানে মানববন্ধন বান্দরবানের দূর্গম এলাকায় সেনাবাহিনীর চিকিৎসা সেবা প্রদান

সৃজনশীল ও সফল রাজনীতিবিদ হিসেবে বড় উদাহরণ ছিলেন আলহাজ্ব খাইরুল বশর

মো.আবুল বাশার নয়ন

অ-ভাই যুদ্ধ বাজিলরে
জাপান বৃটিশে যুদ্ধ হইল শুরু
বৃটিশের পইল ঘাটি তুমব্রæ
আগে যারগৈ গাড়ি ঘোড়া
পিছে যারগৈ খচ্চর।
তার পিছনে চলি যারগৈ
বৃটিশের লষ্কর…..

জাপান-বৃটিশের যুদ্ধের ইতিহাস এভাবে আঞ্চলিক গীতের মাধ্যমে বর্ণনা করেছিলেন ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব খায়রুল বশর। এমন বহু ইতিহাস যার জ্ঞান গহŸরে মজুত ছিল। এমন একজন অসাধারণ বর্ষিয়ান মানুষকে আমরা হারালাম। যার অভাব কোনদিন পূরণ হবে না। দীর্ঘকাল আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন তিনি। বিভিন্ন আন্দোলনে রাজপথে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। মাঠের রাজনীতি করেও তিনি সব দল ও মতের মানুষের কাছে শ্রদ্ধা পেয়েছেন।

ব্যক্তিগতভাবে আমার যখন কোন পুরনো ইতিহাস জানবার প্রয়োজন হতো খাইরুল বশর আঙ্কেলের কাছে ধারস্থ হতাম। তাঁর মৃত্যুতে আমি আবেগ আপ্লুত। কারণ তিনি এবং তাঁর পরিবারবর্গের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত সম্পর্ক ছিল অত্যন্ত ঘনিষ্ট। তিনি চলে গেছেন, আমি ঠিক মেনে নিতে পারছি না। এটা বলতে পারি, আমরা একজন বিরল ব্যক্তিত্ব অসাধারণ মেধাবী মানুষকে হারালাম।

একজন সৃজনশীল ও সফল রাজনীতিবিদ হিসেবে বড় উদাহরণ ছিলেন আলহাজ্ব খাইরুল বশর। বৃটিশ আমলের ঐতিহাসিক ঘুমধুম। ১৯৮৮ থেকে ১৯৯৭ এবং ১৯৯৭ থেকে ২০০৩সাল পর্যন্ত নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ৩নং ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে এবং মৃত্যুর আগমুহুর্ত পর্যন্ত স্থানীয় সাংসদ এর প্রতিনিধি হিসেবে এলাকায় শিক্ষা, যোগাযোগ, কৃষিসহ সর্ব ক্ষেত্রে অবদান রেখেছেন। সম্প্রীতির বন্ধনের কারিগর হিসেবে নিজেকে পরিচিতি লাভ করিয়েছেন।

বর্তমান পরিস্থিতিতে এমন কোনো রাজনৈতিক নেতা নেই, যিনি-কিনা শুধুমাত্র এলাকার মঙ্গলের জন্য কাজ করার চিন্তা করেন। সবার চোখই বড় হয়ে আছে ক্ষমতা পাওয়া এবং তার অপব্যবহারের দিকে। হাতে গোনো কতিপয় রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব ছাড়া প্রায় সকল রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্বই আজ কলংকিত! কিন্তু তার মধ্যে পুরোপুরি ভিন্ন ছিলেন আলহাজ্ব খাইরুল বশর। ক্ষমতার চেয়ারে বসে লুটপাট বা লোভ, লালসা তাঁর মাঝে ছিল না।

সরাসরি মানুষের খোঁজ নেওয়া এমন এক বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ অসময়ে চলে গেলেন আমাদের ছেড়ে। তবে তিনি প্রকৃত মানুষের মাঝে বেঁচে থাকবেন। বেঁচে থাকবেন বান্দরবানের রাজনীতিতেও। কারণ তিনি রাজনীতিতে কিংবদন্তি ছিলেন।

তিনি কখনোই কোন অপশক্তির কাছে মাথা নথ করেননি। রবিবার (২৪ মার্চ) ঢাকা অরুরাস্থ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন আলহাজ্ব খাইরুল বশর (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাঁর মৃত্যুর খবর প্রথম যখন শুনেছি মনে হয়েছে রক্তের কাউকে হারালাম। আমি তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।’

সবশেষ পরম করুণাময় আল্লাহর কাছে দোয়া করি, আল্লাহ যেন মরহুম খাইরুল বশর আঙ্কেলকে বেহশত নসিব করেন এবং তার পরিবারবর্গ ও তার অসংখ্য গুনগ্রাহী মানুষকে যেন শোক সহ্য করার শক্তি দেন।

পোস্টটি শেয়ার করুন:

আপনার মতামত দিন


© All rights reserved © 2021 Dainik Natun Bangladesh
Design & Developed BY N Host BD